মাত্র ৭ দিন চুল লম্বা করার প্রাকৃতিক উপায়

কম বেশি সকলের প্রিয় হলো চুল। আর কেশেতে নারী, নারীর কেশেতেই বেশ। এই কথা কম বেশি সকলে মানে। লম্বা ঘন চুল আমরা সকলে পছন্দ করি। চুল লম্বা হলেই তবে মনে হয় মেয়েদের সৌন্দর্য প্রকাশ পায়। শাড়িতে যদি ঘন কালো কেশ না হয় তাহোলে বেমানান মনে হয়। তবে এই চুল লম্বা করতে অনেকে উঠে পরে লাগে। অনেকে হাজার রকম ক্যামিকেল ব্যবহার করে থাকে এই চুল লম্বা করার জন্যে। কিন্তু অনেকের চুল হয় অনেকের হয় না। অনেকের আবার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হয়। তবে যদি ঠিক মতো চুলের যত্ন নেয়া হয় তাহোলে ঘরে বসে চুলের পরিচর্যা করে চুল লম্বা করা যায়। তবে সঠিক যত্ন না নিলে চুল লম্বা করা আকাশ কুসুম কল্পনা। কিন্তু কথা হলো চুল লম্বা চাইবেন আর যত্ন নিবেন না তা কি করে হয়। তাই আসুন জেনে নেই চুল লম্বা করার সহজ উপায়।

 

১।পেঁয়াজ হলো চুল লম্বা করার একটি ঘরোয়া উপায়। পেঁয়াজের রস চুল লম্বা করতে বিশেষ কার্যকরী। কম বেশি সকলে এই চুল লম্বা করার উপায় এর জন্যে পেঁয়াজের রস সম্পর্কে জানেন। আপনি চুল লম্বা করতে চাইলে প্রথমে চুল পরিমাণ অনুযায়ী পেঁয়াজ কে পেস্ট করে নিন। তারপর পেঁয়াজ থেকে রস নিয়ে সেই রস কে চুলের গোড়ায় গোড়ায় লাগিয়ে নিন। এইভাবে নিয়মিত চুলে পেঁয়াজের রস লাগান। দেখবেন চুল অনেক খানি গজাবে।

 

২।আমরা সাধারণত চুলে তেল ব্যবহার করি। তেল আমাদের চুলে পুষ্টিগুণ জোগায়। তবে চুলে ক্যাস্টর অয়েল ও ব্যবহার করা হয়। কেননা ক্যাস্টর অয়েল এ আছে প্রোটিন, মিনারেলস, ভিটামিন ই, যা চুলের পুষ্টিগুণ উপাদান। চুল লম্বা করতে এই পুষ্টিগুণ গুলো বিশেষ উপকারী। চুলের ঘনত্ব বাড়াতে এই ক্যাস্টর তেল বিশেষ উপকারী। সাধারণত ফার্মেসীতে এই তেল পেয়ে যাবেন। যারা চুল লম্বা করতে চায় তারা এই নিয়মিত এই তেল ব্যবহার করতে পারেন।

 

৩।ডিমের সাদা অংশ যেমন মুখের ত্বকের আর রূপচর্চা জন্যে বিশেষ উপকারী তেমনি ডিমের বানানো প্যাক দিয়ে আপনি চুলের যত্ন ও নিতে পারেন। এই প্যাক টি বানাতে আপনি প্রথমে ১টি ডিমকে ভালোভাবে ফেটে সেখানে লেবুর রস আর আর অলিভ অয়েল ভালোভানে মিশিয়ে নিন। এরপর চুলের গোড়ায় গোড়ায় ভালোভাবে লাগান। অন্তত গোসল করার ৪০ মিনিট আগে হলেও এই প্যাক টি মাথায় লাগান। তারপরে গোসল করার সময় ভালোভাবে শ্যাম্পু দিয়ে চুল ভালোভাবে ধুয়ে পরিষ্কার করে ফেলুন। না হলে ডিমের গন্ধ রয়ে যাবে।এই প্যাক সপ্তাহে ২ থেকে ৩ বার ব্যবহার করুন।

 

৪।চুলের যত্নে চায়ের পাতার ব্যবহার অতুলনীয়। এই চায়ের পাতা কন্ডিশনার এর মতো কাজ করে। ২কাপ পানিকে ভালোভাবে ফুটিয়ে সেখানে চা পাতা দিয়ে দিন। তারপর পানি ফুটে গেলে। টান্ডা করে চা পাতা থেকে পানি গুলোকে ছেঁকে আলাদা করে নিয়ে সেখানে লেবুর রস দিয়ে মিশিয়ে ভালোভাবে চুল ধুয়ে নিন। চুলে শ্যাম্পু করার পর ভালোভাবে এই ভাবে চুল ধুয়ে নিন। ভালো ফল পাবেন। চুলের সৌন্দর্য ফিরে আসবে।

 

৫।রাতে ঘুমানোর আগে অনেকে আছে যারা চুলে নিয়মিত তেল দেন। অথবা তেল দিয়ে পরের দিন সকালে ভালোভাবে শ্যাম্পু দিয়ে ফেলুন। রাতে তেল দিয়ে রাখলে চুলে পুষ্টিগুণ থাকে। আর কোথাও বের হওয়া যায় না তাই চুলে তেল গুলো লোমকূপে পৌঁছায়। এক্ষেত্রে আপনি নারকেল তেলের সাথে অলিভ অয়েল মিশিয়ে চুলে ভালোভাবে ম্যাসাজ করুন। থাকলে সাথে ১টি ভিটামিন ই ক্যাপসুল সহ মিশিয়ে চুলে লাগান। ভালোভাবে ম্যাসাজ করুন যাতে লোমকূপ গুলো খুলে চুলের গোড়ায় পৌঁছে যায়।

 

উপরে যে কয়েকটি সহজ পদ্ধতি দেখানো হয়ছে এই প্রত্যেক্টি আপনি চুলের লম্বা করার যত্নে ব্যবহার করতে পারেন। এগুলা ঘরে বসে সহযে করতে পারেন। শুধু একটু সময় নিয়ে চুলের যত্ন নিলেই লম্বা চুল পাওয়া সম্ভব। তাই নিয়মিত চুলের যত্ন নিবেন।