প্রতি মাসে একবার হলে ও ফেসিয়াল ক্রুন, ফেসিয়াল করার উপকারীতা

প্রতিমাসে কম হলেও একবার ফেসিয়াল করা উচিত। বন্ধুরা এর সাথে সাথে ফেসিয়ালের উপকারিতা নিয়ে আমরা আলোচনা করব। ফেসিয়াল হলো মূলত ত্বক থেকে বা মুখ থেকে ময়লা দূর করার মধ্য দিয়ে ত্বক কে  আগের অবস্থায় ফিরিয়ে দেওয়ার সাথে সাথে ত্বক অনেক বেশি উজ্জ্বল  করা।

ত্বক কে সুন্দর করার ক্ষেত্রে ফেসিয়ালের উপকারিতা কি??  আমরা এ সকল উপকারিতা নিয়ে আলোচনা করব। তারপরে কেন প্রতিমাসে একবার হলেও ফেসিয়াল আমাদের করা উচিত সে সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে বলব।

ত্বক কে ভালো রাখতে ফেসিয়ালের উপকারীতাঃ

  • ফেসিয়ালের অনেক ধরনের উপকারিতা রয়েছে। সেটা নির্ভর করে আমাদের ত্বকের ধরণ এর উপর।
  • আমাদের ত্বকে যেমন বিভিন্ন ধরনের পার্থক্য রয়েছে তার সাথে মিল রেখে বিভিন্ন ধরনের ফেসিয়াল ও রয়েছে।
  • তাই আমাদের ত্বকের ধরন বুঝে আমাদের উচিত ফেসিয়াল ব্যবহার করা। ফেসিয়াল নানাভাবে আমাদের চেহারায় উপকারিতা এনে দেয়। যে সকল উপকার আমরা ফেসিয়ালের মধ্য দিয়ে পায় তা হল………
  • ফেসিয়াল করলে মুখ থেকে বিভিন্ন ধরনের ময়লা দূর হয়ে আমাদের ত্বককে আগের অবস্থায় ফিরিয়ে নিয়ে যায়। সাথে সাথে ত্বক অনেক উজ্জ্বল দেখায়।
  • ফেসিয়াল ব্যবহার করলে আমাদের মুখ থেকে বিভিন্ন ধরনের হোয়াইট হেডস ও ব্ল্যাকহেডস দূর হয়ে যায়। এর মধ্য দিয়ে আমাদের ত্বক মসৃণ দেখায়।
  • ফেসিয়াল ব্যবহারের মধ্য দিয়ে আমাদের মুখের ত্বক যেহেতু পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন হয়ে যায় তাই মুখে ব্রণ ওঠার প্রবণতা কমে যায়।
  • সাথে সাথে ফেসিয়াল এর মধ্য দিয়ে মুখ থেকে বিভিন্ন ধরনের দাগ ও বিভিন্ন ধরনের স্পট দূর হয়ে যায়।
  • আমরা যদি নিয়মিত ফেসিয়াল ব্যবহার করি তাহলে আমাদের মুখ থেকে বয়সের ছাপ দূর হয়ে ত্বক অনেক বেশি উজ্জ্বল ও প্রাণবন্ত দেখায়।
  • আমরা যদি নিয়মিত এই ফেসিয়াল করতে পারি তাহলে সেটা আমাদের ত্বক কে রোদে পোড়া দাগ দূর করে, ত্বকের উৎপাদন ও ব্লাড সার্কুলেশন স্বাভাবিক রেখে আমাদের ত্বক অনেক বেশি উজ্জ্বল দেখায়।

এছাড়াও আরো বিভিন্ন ভাবে ফেসিয়াল আমাদের উপকারিতা এনে দেয়।  এখন আমাদের যে বিষয়টির প্রতি খেয়াল রাখতে হবে সেটি হল………

কত দিন অন্তর অন্তর আমাদের এই ফেসিয়াল করা উচিতঃ

  • নিয়মিত ফেসিয়াল করলে আমাদের ত্বক অনেক বেশি উজ্জ্বল ও প্রাণবন্ত দেখাবে। এক্ষেত্রে একটি বিষয় মনে রাখা উচিত অনেকে মনে করে কম বয়সে ফেসিয়াল করা উচিত নয়।
  • অনেকে বলে থাকে ২০ বছরের উর্ধ্বে না হলে ফেসিয়াল করা উচিত নয়, ফেসিয়াল যেহেতু আমরা ময়লা দূর করতবেশিরভাগ ক্ষেত্রে ব্যবহার করি, তাই সব বয়সে মুখে ময়লা ও দাগ হতে পারে
  • লোমকূপ মুখে যখন আটকে থাকে তখন ঘামের সাথে যুক্ত হয়ে অনেক বেশি শক্ত হয়ে যায় যা সহজে পরিষ্কার করা যায় না। তাই ফেসিয়াল এর মধ্য দিয়ে আমরা সহজে এ ধরনের দাগ গুলো নিয়ে আসতে পারি।
  • তাই যেকোনো বয়সেই ফেসিয়াল করা যায় এবং যেকোনো বয়সে ফেসিয়াল করা উচিত। সুতরাং আমরা যদি ফেসিয়াল করি তাহলে আমাদের মুখ যে ফ্রেশ থাকবে তা আমরা বুঝতে পেরেছি।